আজ ৫ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৯শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

দেবহাটা প্রেসক্লাব নিয়ে অপরাজনীতির ঘটনায় তোলপাড় : বিভিন্ন সংগঠনের নিন্দা

নিজস্ব প্রতিনিধি: সংবিধান মোতাবেক সম্পূর্ন গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় নির্বাচন কমিশনের অধীনে প্রত্যক্ষ ভোটের মাধ্যমে নির্বাচিত দেবহাটা প্রেসক্লাবের নব-নির্বাচিত কার্যনির্বাহী কমিটির নেতৃবৃন্দদের বিপক্ষে অবস্থান নিয়ে সরকার বিরোধী কর্মকান্ডে লিপ্ত বিএনপি ও জামায়ত-শিবিরের পেতাত্মাদের অপরাজনীতি এবং প্রেসক্লাবকে মানুষের কাছে বিতর্কিত করে তুলতে রাতের আধারে গুটি কয়েক অপসাংবাদিককে নিয়ে একই নামে আরেকটি সাংঘর্ষিক ও ভুঁতুড়ে কমিটি ঘোষনা দেয়ায় আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভায় ব্যপক তোলপাড় হয়েছে।
অপসাংবাদিকদের ওই স্বঘোষিত কথিত কমিটির সভাপতি পারুলিয়ার হকার রশিদ ও সাধারণ সম্পাদক কুলিয়ার গন্ডমুর্খ ওমর ফারুক মুকুলের সাথে হত্যা, নাশকতাসহ দেবহাটার কয়েক ডজন মামলার পলাতক আসামী, মোষ্ট ওয়ান্টেড উগ্রবাদী সশস্ত্র জামায়ত নেতা জিয়াউর রহমান ওরফে আফগান জিয়ার দেহরক্ষী সরফরাজের ছবি সম্বলিত সচিত্র সংবাদ প্রকাশের পর বিষয়টি নিয়ে মঙ্গলবার বেলা ১১ টায় উপজেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির সভায় তোলপাড় শুরু হয়।
সভায় দেবহাটা প্রেসক্লাবের সভাপতি আব্দুর রব লিটু তার বক্তব্যে বলেন, স্বধীনতার পর এবারই প্রথম গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় সাংবাদিকদের প্রত্যক্ষ ভোটের মাধ্যমে গত ১ অক্টোবর দেবহাটা প্রেসক্লাবের কমিটি গঠিত হয়েছে। ওই নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দীতায় অংশ নিয়ে সাংবাদিক নামধারী প্রতারক ও প্রতিবন্ধীদের অর্থ আত্মসাতকারী চালতেতলা গ্রামের রিয়াজুল ইসলাম মাত্র চারটি ভোট পেয়ে দেবহাটা প্রেসক্লাবের বর্তমান নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসান শাওনের কাছে পরাজিত হন। এরপর থেকে তিনি দেবহাটা প্রেসক্লাবকে দ্বিখন্ডিত করতে নানামুখী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হন। সম্প্রতি তাকে ভোট দেয়া চারজন সমর্থকের মধ্য থেকে রশিদুল আলম রশিদ ও আকতার হোসেন ডাবলুকে নিজের ষড়যন্ত্রে সম্পৃক্ত করে এবং বহিরাগত বেশ কয়েকজন বিএনপি-জামায়ত-শিবির নেতা, নাশকতা মামলার আসামী, হাতুড়ে ডাক্তার, পত্রিকার হকার, দোকানদার, কাঁকড়া ব্যবসায়ী, মাদকসেবী ও সুদের কারবারিকে ভুঁইফোড় অনলাইনের সাংবাদিক বানিয়ে সোমবার দেবহাটা প্রেসক্লাবের নামে আরেকটি স্বঘোষিত ও সাংঘর্ষিক কথিত কমিটির ঘোষনা দিয়ে দেবহাটা প্রেসক্লাবকে মানুষের কাছে বিতর্কিতের অপচেষ্টা চালিয়েছে। আব্দুর রব লিটু তার বক্তব্যে উপজেলা ও থানা প্রশাসনকে উদ্দেশ্য করে আরো বলেন, দেবহাটা প্রেসক্লাবের নির্বাচিত একটি কমিটি থাকা স্বত্ত্বেও নাশকতাসহ অন্যান্য মামলার এজাহার ভুক্ত কিছু আসামী, বিএনপি ও জামায়ত-শিবির নেতাসহ কিছু দোকানদান, হাতুড়ে ডাক্তার, কাঁকড়া ব্যবসায়ীরা রাতের আধারে স্বঘোষিত কথিত কমিটি বানিয়ে সকাল হতে না হতে আপনাদের কাছে ফুল নিয়ে আসার দুঃসাহস দেখায় কিভাবে এবং আপনারাইবা কোন অবস্থান থেকে সেসব জামায়ত শিবিরের প্রেতাত্মাদের কাছ থেকে হাসতে হাসতে ফুল নেন তা প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দের বোধগম্য হয়নি। প্রেসক্লাব নিয়ে এধরনের ষড়যন্ত্র চলতে থাকলে এবং এসব ষড়যন্ত্রকারীদের আশ্রয় প্রশ্রয় দেয়া হলে দেবহাটা প্রেসক্লাবের প্রথিতযশা সাংবাদিকেরা তা বরদাশত করবেনা বলেও হুশিয়ারী করেন তিনি।
তাই ষড়যন্ত্রকারীদের এমন কর্মকান্ডের তীব্র নিন্দা ও ধীক্কার জানানোর পাশাপাশি অবিলম্বে প্রেসক্লাবের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত জামায়ত-শিবিরের পেতাত্মাদের আইনের আওতায় আনার জন্যও প্রশাসনিক নেতৃবৃন্দের কাছে দাবী জানান আব্দুর রব লিটু।
অন্যদিকে দেবহাটা প্রেসক্লাব নিয়ে অপরাজনীতির ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছে বিভিন্ন ব্যাক্তি ও সংগঠন। মঙ্গলবার মুঠোফোনে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব মুজিবর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি তীব্র নিন্দা জানান। পরে দুপুরে দেবহাটা প্রেসক্লাবের হলরুমে উপস্থিত হয়ে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দদের সাথে মতবিনিময়কালে দেবহাটা উপজেলা আওয়ামী লীগের পক্ষে প্রস্তাবিত কমিটির সহ-সভাপতি আব্দুর রউফ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক যথাক্রমে শেখ ফারুক হোসেন রতন, আরশাদ আলী, মনিরুল ইসলাম মনি, সদস্য রবিউল ইসলাম, শরিফ বিশ্বাস, আব্দুর রউফ, সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু বকর গাজী, পারুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম, কুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রপ্ত চেয়ারম্যান আসাদুল ইসলাম, নওয়াপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহমুদুল হক লাভলু, সখিপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সরদার আমজাদ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হান্নান, সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল কাশেম, কুলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বিধান বর্মন, দেবহাটা উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান মিন্নুর, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মাহবুব আলম খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক রাজু আহমেদ, ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সুমন, কৃষক লীগের আহ্বায়ক নির্মল মন্ডল, সদস্য সচিব আব্দুল্যাহ হীম, তাঁতী লীগের সভাপতি আশরাফুল আলম, সাধারণ সম্পাদক আরিফুজ্জাজামান আরিফ, শ্রমিক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আরমান হোসেনসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দরা দেবহাটা প্রেসক্লাব নিয়ে অপরাজনীতি এবং বিভ্রান্তি সৃষ্টির ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, দেবহাটা প্রেসক্লাব নিয়ে কেউ ষড়যন্ত্র করার চেষ্টা করলে সকলে ঐক্যবদ্ধভাবে তার দাঁতভাঙা জবাব দেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর

মহান বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা