আজ ২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৯ই ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

কালিগঞ্জে একাধিক মামলার আসামী মন্টুর ৩ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড

নিজস্ব প্রতিনিধি : কালিগঞ্জ যৌতুক মামলায় মাহামুদুল হাসান মন্টু(৫৫) নামে এক ব্যাক্তিকে তিন বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।
রবিবার ১৭ই অক্টোবর সকালে সাতক্ষীরা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক ও জেলা জর্জ গোলাম আযম এ রায় দেন।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, ২০০০ সালে কালিগঞ্জ উপজেলার বন্ধ্যোকাটি গ্রামের মহাসিন আলী গাজীর ছেলের মাহামুদুল হাসান মন্টুর সাথে দেবহাটা উপজেলার জগন্নাথপুর গ্রামের রেজাউল করিমের মেয়ে রোকাইয়ার বিয়ে হয়।বিয়ের সময় রেজাউল করিমের জামাই মন্টুকে নগদ টাকাসহ বিভিন্ন জিনিসপত্র দেন। তাদের সংসারে দুটি মেয়ে সন্তান জন্মগ্রহণ করে।কিন্তু মেয়ের বয়স যখন পাঁচ বছর তখন আবারও গর্ভধারণ করেন রোকাইয়া । পরে সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় তাকে যৌতুকের দাবিতে নির্যাতন শুরু করেন করেন মন্টু।বিয়ের পরে শশুরের টাকায় রসুলপুরে বাড়ি করে দেন এবং জামাই মেয়ের নামে ১৪ কাটা জমি কিনেদেন। কিন্ত অতিলোভী মন্টু তাতেও শান্ত হয়নি। আবারও মোটা টাকা বাদী করেন না রাজি হওয়ায় ২০১৪ সালে মন্টু রসুলপুর বাড়িতে মন্টু তার স্ত্রীকে মারাত্মক ভাবে জখম করেন।মেয়েদের ডাক চিৎকারে এলাকাবাসী রোকাইয়াকে অচেতন অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করেন। পরে জামাই মন্টুকে আসামী রোকাইয়ার পিতা রেজাউল করিম বাদী হয়ে সাতক্ষীরা সদর থানায় মামলা করেন নং ১৬৬/১৪।উক্ত মামলা রাষ্ট্রপক্ষে পরিচালনা করেন সাতক্ষীরা জর্জ কোর্টের পাবলিক প্রসিকিউটর এড. আব্দুল লতিফ।তিনি বলেন আদালত ৯ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ ও নথি পর্যালোচনা করে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় মাহামুদুল হাসান মন্টুকে তিন বছরের সশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন । তিনি আরও বলেন মন্টুর বিরুদ্ধে রাষ্ট্র বিরোধী একাধিক মামলা আছে যা বিচারাধীন রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর