আজ ২১শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

দেবহাটার খলিশাখালীতে ভূমিদস্যু আনারুল ও রবিউল বাহিনীর সংঘর্ষ: আহত-৫

স্টাফ রিপোর্টার: জেলার আলোচিত ভূমিদস্যুদের জবরদখলকৃত জনপদ ও অবৈধ অস্ত্রধারী হাফ ডজন শীর্ষ সন্ত্রাসী বাহিনীর অভয়ারণ্য দেবহাটার খলিশাখালীতে অবৈধ কয়েক কোটি টাকার ভাগবাটোয়ারা, আধিপত্য বিস্তার ও অভ্যন্তরীন কোন্দলকে ঘিরে আনারুল ও রবিউল বাহিনীর মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে কমপক্ষে ৫জন গুরুতর আহত হয়েছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর খলিশাখালীর উত্তর পাশের ভেড়িবাঁধের ওপর এ সংঘর্ষের ঘটনাটি ঘটে। সংঘর্ষ চলাকালে মারপিট, ধাওয়া পাল্টা ধাওয়াসহ কয়েক রাউন্ড গুলি বর্ষণের ঘটনাও ঘটে বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা। প্রায় ঘন্টাব্যাপী সংঘর্ষ ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া চলার পর ছত্রভঙ্গ হয়ে স্ব স্ব এলাকায় স্বশস্ত্র অবস্থান নিয়েছে ভূমিদস্যু আনারুল ও রবিউল বাহিনীর কয়েকশ লোকজন। বর্তমানে গোটা খলিশাখালী জুড়ে তীব্র উত্তেজনা ও আতঙ্ক বিরাজ করছে। যেকোন মুহুর্তে খলিশাখালীতে অবস্থানরত অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী ও ভূমিদস্যু বাহিনী গুলো নিজেরাই নিজেদের কোন্দলের জেরে বড় ধরনের সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা।
স্থানীয়রা জনায়, গেল বছরের ১০ সেপ্টেম্বর ভোররাতে ভূমিদস্যু ইছাদ আলীর ছেলে আনারুল ও করিমের ছেলে রবিউলের নেতৃত্বে কয়েকশ সন্ত্রাসী ও ভূমিদস্যুরা খলিশাখালিতে মুহুর্মুহু গুলি ও বোমা বর্ষণের মধ্যদিয়ে এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি ও জমির মালিকপক্ষকে অবৈধ অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ৪৩৯.২০ একর (১৩২০ বিঘা) ব্যাক্তি মালিকানাধীন রেকর্ডিয় জমি এবং শত শত বিঘার বিস্তৃর্ণ মৎস্য ঘের জবর দখল করে নেয়। এরপর থেকে গত প্রায় ৭মাসে জবরদখলকৃত মৎস্য ঘেরগুলো থেকে কয়েক কোটি টাকার মাছ বিক্রি ও জমি হাতবদল করে রাতারাতি কোটিপোতি বনে যায় ভূমিদস্যু আনারুল। পক্ষান্তরে এসব অবৈধ অর্থের ভাগাভাগি থেকে অনেকটাই বঞ্চিত হয়ে আসছিল অপর ভূমিদস্যু রবিউল ও তার বাহিনী। জবরদখল পরবর্তী টানা সময় ধরে নিজেদের অবৈধ দখলদারিত্ব বজায় রাখতে রবিউল ও আনারুল খলিশাখালীতে একাধিক ভূমিদস্যু বাহিনী গড়ে তোলার পাশাপাশি কমপক্ষে হাফ ডজন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী বাহিনীকে লালনপালন করে আসছিল। একইসাথে প্রশাসনকে ঠেকাতে সেখানে বিপুল পরিমান অবৈধ অস্ত্র ও গোলাবারুদ মজুদ রেখেছে এসব বাহিনীগুলো। দীর্ঘদিন ধরে অবৈধ অর্থ এবং জবরদখলকৃত বিস্তৃর্ণ জমির ভাগবাটোয়ারা ও আধিপত্র বিস্তারকে কেন্দ্র করে ভূমিদস্যু আনারুল ও রবিউল বাহিনীর মধ্যে সৃষ্ট অভ্যন্তরীন কোন্দল থেকে চরম উত্তেজনা বিরাজ করে আসছিল।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর খলিশাখালীর উত্তর পাশের ভেড়িবাধের ওপর সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে আনারুল ও রবিউল বাহিনীর লোকজন। এসময় দুপক্ষের সংঘর্ষে যোগ দেয় সেখানে অবস্থানরত আকরাম ডাকাতের বাহিনী, গফুর মাস্তানের বাহিনী, শাহিনুর ও মনি বাহিনী, অহিদুল বাহিনী, স্থানীয় ইউপি সদস্যের বাহিনী সহ অন্তত হাফ ডজন অস্ত্রধারী বাহিনীর সন্ত্রাসীরা। প্রায় ঘন্টাব্যাপী তাদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া চলে। অন্ধকারে সংঘর্ষ চলাকালে সেখানে কয়েক রাউন্ড গুলি বর্ষন করে সন্ত্রাসী ও ভূমিদস্যুরা। এতে খলিশাখালির শাহজাহান গাজীর ছেলে ভূমিদস্যু রবিউলের ছোটভাই ইব্রাহিম ওরফে তোকাম, করিম পাড়ের ছেলে আরিফ পাড়, আবুল হোসেন গাজীর ছেলে রিপন হোসেন, মনিরুল ইসলাম মনিসহ কমপক্ষে ৫জন গুরুতর আহত হয় বলে তাৎক্ষনিক ভাবে জানিয়েছে প্রত্যক্ষদর্শীরা। আহতদের অধিকাংশই রবিউল বাহিনীর সমর্থক বলেও একাধিক সূত্রে জানা গেছে।
এব্যাপারে ভূমিদস্যু বাহিনী প্রধান আনারুল ও রবিউলের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তারা ফোন রিসিভ করেনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর